বৃহস্পতিবার ১৫ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

ঈদগাঁহ হাই স্কুলের শহীদ বেদীতে বর্জ্য, ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

সেলিম উদ্দীন, কক্সবাজার।   |   শুক্রবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২০

ঈদগাঁহ হাই স্কুলের শহীদ বেদীতে বর্জ্য, ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

কক্সবাজার সদরের ঐতিহ্যবাহি বিদ্যাপীঠ ঈদগাঁহ হাই স্কুলের শহীদ মিনারের বেদীতে শুকনা গো-বর্জ্য বস্তু ছড়িয়ে দেয়া কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

এটি দেশের জাতীয় মুল্যবোধের পরিপন্থী, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বাঙ্গালি জাতিসত্ত্বার উপর উদ্দেশ্য প্রণোদিত আঘাত এবং শহীদ মিনার অবমাননা হিসেবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তীর্যক ভাষায় নিন্দা ও ধিক্কার জানানো অব্যাহত রয়েছে।

১৮ ডিসেম্বর শুক্রবার সকালে কে বা কাহারা গোপনে স্কুল বন্ধ থাকার সুবাদে ঈদগাঁহ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের শহীদমিনার পাদদেশে শুষ্ক গো-বর্জ্য সদৃশ বস্তু ছড়িয়ে দিয়েছে।

পরে কে বা কাহারা সেই দৃশ্যধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়া হয়।

এই ঘটনা মুহুর্তে ভার্চুয়াল জগতে নিন্দার ঝড় তুলে।

শহীদ মিনার অবমাননার অভিযোগে স্কুল কর্তৃপক্ষকে ভৎসনা, নিন্দা ও ধিক্কারের কটাক্ষপূর্ণ ভাষায় তুলোধুনো করা হয়।

বিষয়টি স্কুলের প্রধান শিক্ষক খুরশীদুল জান্নাতের নজরে আসলে তিনি ত্বরিৎ পদক্ষেপগ্রহণ করে ওই গো-বর্জ্য সদৃশ্য শুষ্ক বস্তুগুলো সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দেন এবং সাথে সাথে সরিয়ে ফেলে শহীদ মিনার বেদী পরিষ্কার করা হয়।

জানা গেছে , কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু মোহাম্মদ মারুফ আদনান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বরাতে শহীদ মিনার অবমাননার বিষয়টি অবগত হলে তিনি তাৎক্ষণিকভাবে ঈদগাঁহ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি রাহুল নিনিতকে শহীদ মিনারটি পরিষ্কার করে দেয়ার নির্দেশ দেন।

ওই নির্দেশনা পেয়ে রাহুল নিনিতের নেতৃত্ব ছাত্রলীগকর্মী ফয়েজ কামাল, আনোয়ার,আবিদ জোহান,রাকিব ফারদীন,ইয়াহিয়া,রিয়াদ’সহ একদল ছাত্রলীগের নেতাকর্মী গো- বর্জ্য সরিয়ে নিয়ে ধুয়ে মুছে শহীদ মিনার বেদীটি পরিষ্কার করে ফেলেন।

রাহুল নিনিত জানান, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মারুফ ভাইয়ের নির্দেশে আত্মপ্রণোদিত হয়ে বাঙালী জাতি চেতনার শৌর্য গৌরবের প্রতীক শহীদ মিনার পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে।

শহীদ মিনারের প্রতি অশ্রদ্ধা, অসম্মান কিংবা অবমাননা ছাত্রলীগের কোন নেতাকর্মী সহ্য করতে পারে না।
আমরাও পারিনি। এমন নেক্কারজনক ঘটনা যে বা যাহারা ঘটিয়েছে রাহুল নিনিত তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

একই দিন বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে সরেজমিনে শহীদ মিনার চত্বর পরিদর্শন করে কথিত গো- বর্জ্যের কোন অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়নি।

আলোচিত এই ঘটনার বিষয়ে স্কুল প্রধান খুরশীল জান্নাতের কাছে জানতে চাইলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, স্কুল এখন বন্ধ। দীর্ঘদিন একটি সংঘবদ্ধ চক্র স্কুলের সুনাম ও মর্যাদা ক্ষুন্ন করার প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। এটি তার নমুনা।

স্কুল কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যেই ঘটনার রহস্য উদঘাটনে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিট গঠন করেছে।

কমিটিকে আগামী ৩ দিনের মধ্যে রিপোর্ট প্রদান করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এই অনাকাঙ্খিত, অনভিপ্রেত ও ষড়যন্ত্রমূলক ঘটনায় কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ করে প্রধান শিক্ষক বলেন, শহীদ মিনারের মত জাতীয় ঐতিহ্য ও মর্যাদাপূর্ণ স্থাপনার মান, স্বকীয়তা এবং যথাযথ ভাবগাম্ভীর্য রক্ষায় স্কুল কর্তৃপক্ষ বদ্ধপরিকর।

উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে কাউকে ঘোলা জলে মাছ শিকারের চেষ্টা না করার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

সূত্রমতে, ঈদগাঁহ হাই স্কুল ক্যাম্পাস চারদিকে সুউচ্চ সীমানা প্রাচীরে বেষ্টিত, ক্লোজসার্কিট ক্যামেরা দ্বারা সুনিয়ন্ত্রিত ও জেলার অন্যতম বিদ্যাপীঠ।

ওই রকম নিরাপত্তাবেষ্টিত একটি বিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে শহীদ মিনার বেদীমূলে শুষ্ক গো- বর্জ্যের মত উচ্ছিষ্ট বস্তুর উপস্থিতি বা ছড়ানোর ঘটনাটি সমাজে মিশ্রপ্রতিক্রিয়ার জন্ম দিয়েছে।

অনেকে এটি বাঙ্গালি জাতি চেতনার উপর নেক্কারজনক অবমাননা, আবার অনেকে স্কুল কর্তৃপক্ষের গাফলতি বা নিরাপত্তা শৈথিল্য বলে অভিযোগ করছেন।

কেউ কেউ এই ঘটনা সংঘটনে কুচক্রীমহলের প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ ইন্ধন আছে বলে ধারণা করছেন।

সাধারণ মানুষের অভিমত সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে এই ঘটনার নেপথ্য কুশীলবদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির মুখোমুখি দাঁড় করানো হোক, নয়তো এই অভিযোগের দায় স্কুল কর্তৃপক্ষকেই বহন করতে হবে।

Facebook Comments
advertisement

Posted ১২:৪৩ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২০

দৈনিক প্রথম দৃষ্টি |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
প্রকাশক
মাসুদ করিম সিদ্দিকী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মিজানুর রহমান সিদ্দিকী রঞ্জু
সম্পাদক
এস কে দোয়েল
প্রধান প্রতিবেদক
আব্দুল্লাহ আল মাহাদী
অফিস ব্যবস্থাপনা
নিসা আলী
সম্পাদকীয় কার্যালয়
৫/সি, আফতাবনগর মেইন রোড, রামপুরা, ঢাকা।
আঞ্চলিক প্রধান কার্যালয়
চৌরাস্তা বাজার, তেঁতুলিয়া, পঞ্চগড়
ফোন
+৮৮০১৭৫০-১৪০৯১৯ (সম্পাদক)
+৮৮০১৭১৮-৭৭২৭৪৯ (বার্তা-সম্পাদক)
Email
prothomdristy@gmail.com