মঙ্গলবার ৯ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

পঞ্চগড়ে ধর্ষনের শিকার কিশোরী, লোকলজ্জার ভয়ে আত্মহত্যা ।

  |   সোমবার, ০৬ জানুয়ারি ২০২০

পঞ্চগড়ে ধর্ষনের শিকার কিশোরী, লোকলজ্জার ভয়ে আত্মহত্যা ।

পঞ্চগড় প্রতিনিধি :
পঞ্চগড়ে ধর্ষণের শিকার হওয়ার পর ক্ষোভে আর লোকলজ্জার ভয়ে মরিয়ম খাতুন (১৩) নামে এক কিশোরী আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ করেছে তার পরিবার। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ধর্ষক পলাশকে (২০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
সোমবার বিকেলে ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে পঞ্চগড় সদর থানায় ওই যুবককে আসামি করে একটি মামলা করেছে। ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরী পঞ্চগড় সদর উপজেলার গরিনাবাড়ি ইউনিয়নের মোল্লাপাড়া গ্রামের মৃত মজিবর রহমানের মেয়ে। সে স্থানীয় ভাটাপুকুরি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী ছিল। অভিযুক্ত পলাশ পেশায় একজন রাজমিস্ত্রি। সে একই এলাকার আজিত আলীর ছেলে।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, সোমবার ভোরে নামাজের জন্য ঘুম থেকে উঠে মর্জিনা বেওয়া দেখেন পাশেই শুয়ে থাকা মেয়েকে পলাশ মুখ চেপে ধর্ষণ করছে। এ সময় তিনি পলাশকে ধরার চেষ্টা করলে তাকে ধাক্কা দিয়ে সে পালিয়ে যায়। সকালে তিনি স্থানীয় লোকজনকে বিষয়টি জানিয়ে বিচার চাইবেন বলে আবার মেয়েকে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন।

সকাল সাড়ে ৬টায় তিনি ঘুম থেকে উঠে দেখেন তার মেয়ে ঘরে নেই। বাইরে বেড়িয়ে দেখেন উঠনের একটি গাছে ওড়না দিয়ে ফাঁস দেওয়া অবস্থায় মেয়ের দেহ ঝুলছে। এ দৃশ্য দেখে তিনি চিৎকার শুরু করেন। স্থানীয়রা বিষয়টি পঞ্চগড় সদর থানা পুলিশকে জানালে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করে।

এদিকে দুপুরেই অভিযুক্ত পলাশকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বিকেলে ওই কিশোরীর মা পলাশকে আসামি করে পঞ্চগড় সদর থানায় একটি মামলা করেছেন। মামলার এজাহারে বলা হয়, বিদ্যালয়ে যাওয়া আসার পথে প্রায়ই পলাশ তার মেয়েকে উত্ত্যক্ত করতো। তার কারণেই নিজের সম্ভ্রম ও সম্মান রক্ষার্থে মরিয়ম আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে বলেও তার মা দাবি করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পঞ্চগড় সদর থানার উপপরিদর্শক মঞ্জুরুল ইসলাম জানান, ধর্ষণ ও আত্মহত্যার প্ররোচণার অভিযোগে পলাশের বিরুদ্ধে মরিয়মের মা মামলা করেছেন। অভিযুক্ত পলাশকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।
থানা হেফাজতে গ্রেপ্তার পলাশ সাংবাদিকদের বলেন, প্রায় এক বছর ধরে মরিয়মের সাথে আমার প্রেমের সম্পর্ক। ভোররাত পর্যন্ত তাদের ঘরে একসঙ্গে থেকে আমি চলে আসি। পরে হয়তো মায়ের সঙ্গে ঝগড়া করে সে আত্মহত্যা করেছে।

Facebook Comments
advertisement

Posted ৪:৫৯ অপরাহ্ণ | সোমবার, ০৬ জানুয়ারি ২০২০

দৈনিক প্রথম দৃষ্টি |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
প্রকাশক
মাসুদ করিম সিদ্দিকী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মিজানুর রহমান সিদ্দিকী রঞ্জু
সম্পাদক
এস কে দোয়েল
প্রধান প্রতিবেদক
আব্দুল্লাহ আল মাহাদী
অফিস ব্যবস্থাপনা
নিসা আলী
সম্পাদকীয় কার্যালয়
৫/সি, আফতাবনগর মেইন রোড, রামপুরা, ঢাকা।
আঞ্চলিক প্রধান কার্যালয়
চৌরাস্তা বাজার, তেঁতুলিয়া, পঞ্চগড়
ফোন
+৮৮০১৭৫০-১৪০৯১৯ (সম্পাদক)
+৮৮০১৭১৮-৭৭২৭৪৯ (বার্তা-সম্পাদক)
Email
prothomdristy@gmail.com