মঙ্গলবার ২৭শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

পঞ্চগড় ছাড়া রংপুর বিভাগের সব জেলায় করোনার হানা

  |   বুধবার, ১৫ এপ্রিল ২০২০

পঞ্চগড় ছাড়া রংপুর বিভাগের সব জেলায় করোনার হানা

প্রথম দৃষ্টি ডেস্কঃ প্রতিদিন কোনো না কোনো উপায়ে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জসহ গার্মেন্টস শিল্প অধ্যুষিত এলাকাগুলো থেকে রংপুর বিভাগে ফিরছে দলে দলে মানুষ। তাদের নিয়ন্ত্রণহীন বিচরণে দিন দিন বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। এখন রংপুর বিভাগের আট জেলার মধ্যে শুধু পঞ্চগড় ছাড়া বাকি সব জেলাতেই ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস।

প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের সংক্রমণ ঝুঁকি ও বিস্তার প্রতিরোধে ইতোমধ্যে বিভাগের পাঁচটি জেলাকে অনির্দিষ্টকালের জন্য অবরুদ্ধ (লকডাউন) ঘোষণা করা হয়েছে। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে এক জেলা থেকে আরেক জেলায় প্রবেশ ও বহির্গমন।

প্রশাসনের কড়াকড়ি বিধিনিষেধের পরও রাতের আঁধারে প্রতিদিন ট্রাকসহ বিভিন্ন পরিবহনে কম বেশি বাইরে থেকে লোকজন গ্রামে গ্রামে ফিরছেন। এ অবস্থায় করোনা মোকাবিলায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার স্বাস্থ্যবিধি ও সরকারি বিধিনিষেধ অমান্য করলে পরিস্থিতি ভয়াবহ হবার আশঙ্কা করছেন সচেতন মহল। একটি মাত্র জেলা বাদে পুরো রংপুর বিভাগে ছড়িয়ে পড়ায় বাড়ছে উদ্বেগ ও উৎকন্ঠা।

webnewsdesign.com

বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, রংপুর বিভাগের সাত জেলায় বুধবার (১৫ এপ্রিল) পর্যন্ত ৩৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। পঞ্চগড়ে কাউকে এ ভাইরাসে শনাক্ত হিসাবে পাওয়া যায়নি। শুধু আজকেই নতুন করে তিনজন করোনা শনাক্ত হয়েছে।

রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. আমিন আহমেদ খান জানান, রংপুর বিভাগের আট জেলা প্রতিদিন করোনা আক্রান্ত সন্দেহভাজনদের নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে। গেল ১৩ দিনে (১৪ এপ্রিল পর্যন্ত) রমেকের পিসিআর ল্যাবে ৮৬৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এরমধ্যে ৩১ জন করোনা আক্রান্ত হিসাবে শনাক্ত হয়েছে। এছাড়াও আরও ৬ জন ঢাকায় আইইডিসিআর এর মাধ্যমে শনাক্ত হয়েছেন।

আক্রান্তদের মধ্যে গাইবান্ধায় ১৩, দিনাজপুরে ৮, নীলফামারীতে ৬, ঠাকুরগাঁওয়ে ৩, রংপুরে ৩, লালমনিরহাটে ২ এবং কুড়িগ্রাম জেলায় ২ জন রয়েছেন।

এদিকে করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য রংপুর বিভাগের প্রতিটি জেলা ও উপজেলা মিলে মোট ৭৮৭টি আইসোলেশন বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। গুরুত্বর আক্রান্তদের রংপুর শিশু হাসপাতালে আলাদাভাবে ৫০টি আইসিইউ বেড তৈরি করার কাজ শুরু হয়েছে। এছাড়াও প্রতিটি জেলায় হোম কোয়ারেন্টাইনের ওপর গুরুত্ব দিয়ে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা ও সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে বলেও জানান বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক।

রংপুরে করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা প্রস্তুতি সম্পর্কে জেলা প্রশাসক আসিব আহসান জানান, সরকারিভাবে জেলায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, রংপুর শিশু হাসপাতাল, ৩১ শয্যা বিশিষ্ট হারাগাছ হাসপাতাল, রংপুর যুব উন্নয়ন কেন্দ্রসহ ১১টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। সেখানে ৪১৫টি বেড থাকবে। তবে এখন পর্যন্ত ১৩৭টি বেড প্রস্তুত রয়েছে ।

এই জেলায় করোনা রোগীদের চিকিৎসা সেবার জন্য ৯০ জন চিকিৎসক ও ৯৫ জনকে নার্সকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। মজুদকৃত ৬৬৯৭টি ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী (পিপিই) থেকে ইতোমধ্যে ৮৫৩টি বিতরণ করা হয়েছে।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৫:০৬ অপরাহ্ণ | বুধবার, ১৫ এপ্রিল ২০২০

দৈনিক প্রথম দৃষ্টি |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

কবিতা- মৃত্যু
কবিতা- মৃত্যু

(383 বার পঠিত)

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
প্রকাশক
মাসুদ করিম সিদ্দিকী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মিজানুর রহমান সিদ্দিকী রঞ্জু
সম্পাদক
এস কে দোয়েল
প্রধান প্রতিবেদক
আব্দুল্লাহ আল মাহাদী
অফিস ব্যবস্থাপনা
নিসা আলী
সম্পাদকীয় কার্যালয়
৫/সি, আফতাবনগর মেইন রোড, রামপুরা, ঢাকা।
আঞ্চলিক প্রধান কার্যালয়
চৌরাস্তা বাজার, তেঁতুলিয়া, পঞ্চগড়
ফোন
+৮৮০১৭৫০-১৪০৯১৯ (সম্পাদক)
+৮৮০১৭১৮-৭৭২৭৪৯ (বার্তা-সম্পাদক)
Email
prothomdristy@gmail.com