বৃহস্পতিবার ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

লকডাউনে ঈদ-উৎসব; লোকসানে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা

  |   রবিবার, ০৩ মে ২০২০

লকডাউনে ঈদ-উৎসব; লোকসানে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা

পঞ্চগড় প্রতিনিধি:
দেশে করোনাভাইরাস আতঙ্কে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ক্ষুদ্র ও ভ্রাম্যমাণ ব্যবসায়ী এবং নিম্ন আয়ের মানুষ।
বিশ্বজুরে মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রভাবে দেশে এর মোকাবেলায় সরকার ঘোষিত জেলায় জেলায় লকডাইন, এর থেকে বাদ পড়েনি উত্তরের সর্বশেষ জেলা পঞ্চগড়ও।

পঞ্চগড় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের মতে, ঈদ-উৎসব হচ্ছে না, দোকানপাট বন্ধ ফলে অন্যান্য বছরের ন্যায় এ বছর জমজমাট কিছু নেই। সব ফাঁকা সর্বত্রই সুনসান নীরবতা। করোনার প্রভাবে এবার বদলে গেছে সেই চিত্র। ফোন না-ধরা দোকানিরা এবার বাড়িতে বসে হিসাব কষছেন লোকসানের।
লকডাউনে শপিং মল থেকে শুরু করে ফুটপাতের সব দোকান বন্ধ। ঈদ-উৎসব ঘিরে এ বছর মাথায় হাত পড়েছে পঞ্চগড়ে হাজার হাজার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীর ।

করোনাভাইরাস দেশে কত দিন থাকবে,আর কত দিন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ব্যবসা বন্ধ থাকবে সেটার ওপর নির্ভর করছে বস্ত্র, গার্মেন্টস, সু- ও কসমেটিকস পণ্যের দোকানগুলো বড়ো ধরনের আর্থিক সংকটের মুখে পড়তে যাচ্ছে।

webnewsdesign.com

বাবলা হোসিয়ারী এন্ড গার্মেন্টস এর প্রোপাইটর আনোয়ার হোসেন বাবলা, কাপরের ব্যবসা আমাদের রমযান মাস একমাস ব্যবসা করব এগারো মাস ঘর ভাড়া ও শ্রমিকের বেতন দিয়ে সংসার চালাবো। আসছে ঈদ-উৎসব দোকান বন্ধ থাকছে। দিতে হচ্ছে ঘর ভাড়া ও শ্রমিকের বেতন । করোনা ভাইরাসের প্রভাব দীর্ঘদিন থাকলে এর ফলে বড়ো আকারের আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ে ব্যবসা টিকিয়ে রাখা সম্ভব হবে না বলে জানান তিনি।

কথা হয় ফুটপাতে চা বিক্রি করা আব্দুল গনির সাথে তিনি বলেন, চা বিক্রি করেই আমার সংসার চলতো
করোনা পরিস্থিতিতে ১ মাস ধরে দোকান বন্ধ। সরকারের ত্রান সহায়তা ১০ কেজি চাল পেয়েছি ৬ সদস্যের সংসার কয়দিন যায় ওই চাল । সামনে ঈদ-উৎসব ভেবে পাচ্ছিনা কিভাবে কি করব খাবারও শেষ ।

বস্ত্র বিতানের কর্মরত আমিরুল ইসলাম বলেন, করোনায় মাসব্যাপী দোকান বন্ধ বেতন দিবে বলে মনে হয় না মালিক পক্ষ। অভাব অনটনে দিনযাপন করছি।

ঈদ-উৎসবে এক থেকে দুই মাস আগেই ধার দেনা করে বিনিয়োগ করেছেন ব্যবসায়ীরা । করোনাভাইরাসের প্রার্দুভাব এভাবে ছড়িয়ে পড়বে তা ভাবতেই পারেননি। এসব পণ্য এখন বিক্রি করতে পারছেন না। ঈদ-উৎসব পার হলে পণ্যেগুলোর চাহিদাও থাকবে না। তাই পঞ্চগড়ে প্রায় হাজারও অধিক ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীকে বইতে হবে লোকশানের বোঝা। সরকার ঘোষিত প্রণোদন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা পাবে কি না তা নিয়েও দু:চিন্তায়।

পঞ্চগড় বস্ত্র ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সভাপতি শহিদুল ইসলাম খান বলেন,অন্যান্য দোকানের ন্যায় সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে সরকার যদি আমাদের কোথাও দোকান করার জন্য সুযোগ করে দেয় তাহলে হয়ত শ্রমিকদের নিয়ে আমরা দু,বেলা দু,মুঠো খেয়ে লোকসানের বোঝাটা কমিয়ে আনতে পারব।

এস/এস

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ২:০৬ অপরাহ্ণ | রবিবার, ০৩ মে ২০২০

দৈনিক প্রথম দৃষ্টি |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

কবিতা- মৃত্যু
কবিতা- মৃত্যু

(528 বার পঠিত)

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
প্রকাশক
মাসুদ করিম সিদ্দিকী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মিজানুর রহমান সিদ্দিকী রঞ্জু
সম্পাদক
এস কে দোয়েল
অফিস ব্যবস্থাপনা
নিসা আলী
সম্পাদকীয় কার্যালয়
৫/সি, আফতাবনগর মেইন রোড, রামপুরা, ঢাকা।
আঞ্চলিক প্রধান কার্যালয়
চৌরাস্তা বাজার, তেঁতুলিয়া, পঞ্চগড়
ফোন
+৮৮০১৭৫০-১৪০৯১৯ (সম্পাদক)
+৮৮০১৭১৮-৭৭২৭৪৯ (বার্তা-সম্পাদক)
Email
prothomdristy@gmail.com