বৃহস্পতিবার ৪ঠা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

লালমনিরহাটে পানিতে তলিয়ে গেছে দুই গ্রামের আবাদি ফসল ও ঘরবাড়ি

  |   রবিবার, ০৭ জুন ২০২০

লালমনিরহাটে পানিতে তলিয়ে গেছে দুই গ্রামের আবাদি ফসল ও ঘরবাড়ি

নূর আলমগীর অনু, লালমনিরহাট


লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে দুটি গ্রাম পানিতে তলিয়ে গেছে, তলিয়ে গেছে ঘরবাড়ি ও আবাদী জমির ফসল।

সরেজমিনে উপজেলার তুষভান্ডার ইউনিয়নের ৬নং তুষভান্ডার ও ৭ নং সুন্দ্রাহবি এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে টানা বর্ষনের ফলে পানিতে  তলিয়ে গেছে গ্রাম দুটির আবাদী ফসল এবং পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন কিছুসংখযক  ঘরবাড়ি। চলাচলের রাস্তায় পানি উঠে পড়েছে। ফলে জনসাধারনের যাতায়াতে বিঘ্ন ঘটছে। এ সমসা সহসাই সমাধান৷ না হলে প্রায় ৭/৮ শত পরিবার এ পানির কারনে পানিবন্দী ও কর্মহীন হয়ে পড়বেন। এমনকি এসকল নোংরা পানির কারনে ৭/৮ পরিবারের লোকজনের বিভিন্ন ধরনের পানিবাহিত রোগ সহ করোনা  ভাইরাস  আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা অনেক বেশি বলে মনে করছেন এলাকার সচেতন মানুষ। 
এ বিষয়ে স্থানীয়রা বলেন, পানি নিস্কাশনের রাস্তার মুখে ঘরবাড়ি নির্মান ও বিভিন্ন মৎস্য প্রকল্প স্থাপন করায় অতীতের ন্যায় পানি নিস্কাশিত হতে না পারায় এ সমস্যার সৃস্টি হয়েছে। ফলে দুটি গ্রামের আবাদী ফসল ও বসতবাড়ি পানিতে তলিয়ে গেছে। বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনের কোন নজরদারী নেই। ফলে এভাবেই পানিতে বসবাস করে দিনযাপন করে চলেছি। 
স্থানীয় একজন বৃদ্ধা বলেন, বাহে পানিত হামার ঘর তলিয়ে গেছে। হামাক দেখার কাও নাই। বাব্যাক মাইনসে আইসে কিন্তু ক্যাও একনা সমাধান করিল না বাহে। তোমরা একনা হামার জন্যে কিছু একনা কর বায়। এমনি আর কয়দিন পানিত ছ্যায়া নিয়া থাকি। 
অধর চন্দ্র রায় শিক্ষক বলেন, পানি নিস্কাশনের রাস্তা বন্ধ করেছে কিছু প্রভাবশালী। ফলে এলাকার ৭/৮ পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। দুটি গ্রামের আবাদী ফসল তলিয়ে গেছে। কিন্তুু প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের কোন ভুমিকা নেই।
এ বিষয়ে তুষভান্ডার ইউনিয়নের  প্যানেল চেয়ারম্যান  কৃষ্ণ  চরণ  মোহন্ত বলেন, এটি দীর্ঘ ৬বছর ধরে এই সমস্যা চলে আসছে। এলাকার একটি পক্ষ পানি নিষ্কাশনের পথ বন্ধ করে দেয়ায় এ সমস্যার উদ্ভব হয়েছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।
এ বিষয়ে কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রবিউল হাসান  বলেন, বিষয়টি শুনেছি। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সরেজমিনে এলাকাটি পরিদর্শন করা হয়েছে। এ বিষয়ে দ্রুত সমাধানের ব্যবস্থা নেয়ার জন্যে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তবে আগামী শুকনো মৌসুমে স্থায়ীভাবে ড্রেনেজ ব্যবস্থা করার কথা জানান তিনি।

Facebook Comments
advertisement

Posted ৯:৩৪ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, ০৭ জুন ২০২০

দৈনিক প্রথম দৃষ্টি |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
প্রকাশক
মাসুদ করিম সিদ্দিকী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মিজানুর রহমান সিদ্দিকী রঞ্জু
সম্পাদক
এস কে দোয়েল
প্রধান প্রতিবেদক
আব্দুল্লাহ আল মাহাদী
অফিস ব্যবস্থাপনা
নিসা আলী
সম্পাদকীয় কার্যালয়
৫/সি, আফতাবনগর মেইন রোড, রামপুরা, ঢাকা।
আঞ্চলিক প্রধান কার্যালয়
চৌরাস্তা বাজার, তেঁতুলিয়া, পঞ্চগড়
ফোন
+৮৮০১৭৫০-১৪০৯১৯ (সম্পাদক)
+৮৮০১৭১৮-৭৭২৭৪৯ (বার্তা-সম্পাদক)
Email
prothomdristy@gmail.com