মঙ্গলবার ২৭শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

হামরা শ্রমিকলা ভাল নাই,হামার কেহো খবর নেয় না

  |   শুক্রবার, ০১ মে ২০২০

হামরা শ্রমিকলা ভাল নাই,হামার কেহো খবর নেয় না

 


নিজেস্ব প্রতিবেদকঃ  

আজ ১লা মে, মহান মে দিবস । মাঠে ঘাঠে কাজ করা শ্রমিক ও মেহনতী মানুষের কাছে এই দিনটি খুব স্মরণীয় একটি দিন । শ্রমিকদের দিন চলে মাঠে ঘাঠে কাজ করে । পঞ্চগড়ের জনগোষ্ঠির একটি বড় অংশ হলো শ্রমিক । যাদের একদিন কাজে বের না হলে চুলায় ভাতের হাড়ি বসে না সেসব খেটে খাওয়া শ্রমিকদের জীবন কাটছে আজ অনাহারে করোনার কারণে আজ তাদের কাজ বন্ধ ফলে ক্ষুধার কামড়ে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন কাটছে তাদের ।

জেলা প্রশাসন গত ২৪ মার্চ করোনার প্রকোপ রোধে বিশেষ সতর্কতা জারি করছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সকল হাট-বাজার,দোকান-পাট ,গনপরিবহন ,ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান বন্ধ সহ সাধারন মানুষকে বাইরে বের না হয়ে নিজ নিজ ঘরে অবস্থান করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করছে তবে কাজ করতে না পারায় কর্মহীন হয়ে পড়েছে জেলার কর্মজীবি মানুষেরা । সবচেয়ে বেশী বিপাকে পড়েছে দিন এনে দিন দিন খাওয়া ও খেটে খাওয়া মানুষেরা । এ জেলার জনগোষ্ঠির একটি বড় অংশ পাথরের শ্রমিক ও দিন মজুর । এসব পাথর শ্রমিক ও দিন মজুররা কাজ করতে না পারায় পরিবার পরিজন নিয়ে খেয়ে না খেয়ে দিন রাত্রি পার করছে । তাদের অভিযোগ তাদের কেউ কোন খোজ খবর রাখছে না ।

webnewsdesign.com

আজ শুক্রবার (১লা মে) দুপরে জেলার তেঁতুলিয়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে পাথর শ্রমিকরা কাজ করতে না পাড়ায় অলস সময় পার করছে কেউ কেউ ত্রাণের সন্ধ্যানে বিভিন্ন এলাকায় ছুটে বেড়াচ্ছে ।

এবিষয়ে কথা হয় তেঁতুলিয়া উপজেলার দেবনগড় ইউনিয়নের নিজবাড়ি এলাকার নারী পাথর শ্রমিক হাজেরা খাতুনের সাথে,তিনি জানান, পাথর তোলা বন্ধ তারপরও কোন রকম কাজ করে দিন কাটে আসতে ছিলাম কিন্তু করোনার কারনে কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বেকার হয়ে পড়েছি । আমরা কোন সহায়তা পাচ্ছি না কেউ আমাদের পাথর শ্রমিকদের কিছু দিচ্ছে না এভাবে না খেয়ে কত দিন চলবো । আমরা সরকারের কাছে সহযোগীতা কামনা করছি ।

একই কথা জানান বুড়াবুড়ি এলাকার পাথর শ্রমিক হাসিবুল ইসলাম, তিনি জানান, হামরা কাজোত যাবা পারি না মহাজন কাজ বন্ধ করে দিছে। সরকার হামাক বাড়িত রহিবা কহিচে তাতে ৩৫ দিন ধরে কাজ না করে বসে আছি । ঘরে যা চাল ছিল ্ও কয়েক দিন ছেলে মেয়ে নিয়ে খোল এখনতো আর কোন উপায় নাই । মেম্বার চেয়ারম্যান অনেক মানুষকে কত কিছু দেছে হামরা ভাল নাই,কাহো হামার খবর নেয় না এবং কিছুই দেয় না হামরা কি করিমো এলা ।

এবিষয়ে বাংলাবান্ধা কুলি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আকতারুল ইসলাম জানান, আমরা শ্রমিকরা কাজ না করলে জীবন চলে না । করোনার কারণে হাজার শ্রমিক বেকার হয়ে পড়েছে আমরা সরকারের কাছে বেচে থাকার জন্য একটু সহযোগীতা চাই ।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১০:৫০ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, ০১ মে ২০২০

দৈনিক প্রথম দৃষ্টি |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
প্রকাশক
মাসুদ করিম সিদ্দিকী
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
মিজানুর রহমান সিদ্দিকী রঞ্জু
সম্পাদক
এস কে দোয়েল
প্রধান প্রতিবেদক
আব্দুল্লাহ আল মাহাদী
অফিস ব্যবস্থাপনা
নিসা আলী
সম্পাদকীয় কার্যালয়
৫/সি, আফতাবনগর মেইন রোড, রামপুরা, ঢাকা।
আঞ্চলিক প্রধান কার্যালয়
চৌরাস্তা বাজার, তেঁতুলিয়া, পঞ্চগড়
ফোন
+৮৮০১৭৫০-১৪০৯১৯ (সম্পাদক)
+৮৮০১৭১৮-৭৭২৭৪৯ (বার্তা-সম্পাদক)
Email
prothomdristy@gmail.com